কাশ্মীরে ভারতের পদক্ষেপে সহিংসতা বাড়বে, অ্যামনেস্টির সতর্কবার্তা

ভারতে জম্মু-কাশ্মীর রাজ্যকে বিশেষ মর্যাদা দেওয়া সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিল করা হয়েছে। এই ইস্যুতে সোমবার বিবৃতি দিয়েছে লন্ডনভিত্তিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। ভারতকে সতর্ক করে অ্যামনেস্টি জানিয়েছে, কাশ্মীরের মর্যাদা পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত রাজ্যটিতে সহিংসতা বাড়াতে পারে। কাশ্মীরে ভারতের পদক্ষেপ অস্থিরতার কারণ হতে পারে। বিক্ষোভ ব্যাপক আকার ধারণ করতে পারে। গত কয়েকদিনের পরিস্থিতিতে কাশ্মিরীদের খাদের কিনারায় ঠেলে দেওয়া হয়েছে।

সর্ব ভারতীয় অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের প্রধান আকর পাটেল বলেছেন, গত কয়েকদিন ধরে কাশ্মীর প্রত্যক্ষ করছে- অতিরিক্ত হাজার হাজার নিরাপত্তা সদস্য মোতায়েন, টেলিফোন ও ইন্টারনেট সুবিধা বন্ধ, শান্তিপূর্ণ সমাবেশে নিষেধাজ্ঞা। এ পরিস্থিতি জম্মু কাশ্মীরের মানুষদের খাদের কিনারায় ঠেলে দিয়েছে।

আকর পাটেল মন্তব্য করেন, জম্মু-কাশ্মীরে গুরুত্বপূর্ণ রাজনীতিবিদদের গৃহবন্দি করে পরিস্থিতিকে আরও খারাপ করে ফেলা হয়েছে। কাশ্মীরের মানুষের সম্পৃক্ততা ছাড়া সেখানকার নিপীড়ন বন্ধ করা যাবে না।

তিনি বলেন, অনির্দিষ্ট সময় ধরে জম্মু কাশ্মীরের টেলিযোগাযোগ সেবা বন্ধ রাখা আন্তর্জাতিক মানবাধিকার মানের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়। এসব বন্ধ থাকার কারণে কাশ্মীরের জনগণের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জানার, জানানোর সক্ষমতাকে ক্ষতিগ্রস্থ করছে। এগুলো বাকস্বাধীনতার অখন্ড অংশ।

প্রসঙ্গত, জম্মু-কাশ্মীরে কয়েক সপ্তাহ ধরে অতিরিক্ত হাজার হাজার নিরাপত্তা সদস্য মোতায়েন করে মোদি সরকার। গত শুক্রবার তীর্থযাত্রী ও পর্যটকদের দ্রুত কাশ্মীর ছেড়ে যাওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়। এরপরেই রাজ্যে সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ করে বহু রাজনীতিবিদকে গৃহবন্দি করা হয়। মোবাইল ইন্টারনেট বন্ধ ও বিভিন্ন স্থানে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়। আর এর মধ্যেই সোমবার ভারতের পার্লামেন্টে ঘোষণা দিয়ে কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদার সুরক্ষা দেওয়া সংবিধানের ৩৭০ ধারা বাতিল করে বিজেপি সরকার।